মিঠাপুকুরে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার:

রংপুরের মিঠাপুকুরে তালাক হয়ে যাওয়া এক স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে। ২২ ডিসেম্বর তার বিরুদ্ধে মিঠাপুকুর থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন তালাকপ্রাপ্ত ওই নারী। অন্যদিকে, অভিযুক্ত সাবেক ৫ম স্বামী রাকিবুল ইসলাম ধর্ষণের ঘটনাটি মিথ্যা দাবি করে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত ঘটনা বের করে সঠিক বিচার চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেছেন ।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, তার সাবেক ৫ম স্বামী শঠিবাড়ী বাজারের বাসিন্দা রাকিব এন্টার প্রাইজের মালিক রাকিবুল ইসলাম রাকিব তাকে ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে মোবাইল ফোনে রাকিব এন্টার প্রাইজের কাউন্টারে ডেকে নেয়। সেখানে ১০মিনিট কথাবার্তা বলার এক পর্যায়ে দুপুর অনুমান আড়াইটার সময় কাউন্টারের অফিস কক্ষে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়। বিষয়টি তার নানী, বাবা-মাকে অবগত করে তাদের পরামর্শে ২দিন পর ২২ সেপ্টেম্বর মিঠাপুকুর থানায় একটি ধর্ষন মামলা করেছেন।

মামলাটি মিথ্যা ও সাজানো বলে দাবী করে অভিযুক্ত রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন,  ওই নারীকে তালাক দেওয়ার আক্রোশে সে তার বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা করছে। তিনি আরও বলেন, এর পূর্বেও ঐ নারী ৪টি বিবাহ করেছিল। তাদের বিরুদ্ধেও একাধিক মামলা দিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে মীমাংসা করেছে। বিবাহ করা এবং মামলা করা তার নেশা হয়ে গেছে। ওই নারী এর আগেও ৪টি বিবাহ করেছিল। সেটা আমার জানা ছিলনা। এরপরও আমি সংসার করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তার স্বভাব বদলায়নি। গত ২৩ জানুয়ারি তাকে আমি তালাক প্রদান করি। তালাক নোটিশ পাওয়ার পর থেকে সে আমাকে হেনস্থা করার উদ্দেশ্যে একের পর এক মিথ্যা মামলা করছে।

ধর্ষনের বিষয়ে জানতে চাইলে রাকিব জানান, ওই দিন রবিবার শঠিবাড়ী হাটবার থাকায় বেলা ২ টার দিকে গরু কিনতে হাটে গিয়েছিলাম এবং গরু কিনে বাড়ীতে নিয়ে আসি। সেদিন ওই নারীর সাথে তার দেখা হয়নি। এ বিষয়ে সূষ্ঠু তদন্তের জন্য পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছেন বলেও বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মিঠাপুকুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, মামলার তদন্ত চলছে। এ বিষয়ে এখনই কোন মন্তব্য করা যাবে না।

এম২৪নিউজ/আখতার