মিঠাপুকুরে চাঞ্চল্যকর হত্যা ও ডাকাতি মামলার প্রধান আসামী জাকির গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক:

রংপুরের মিঠাপুকুরে গৃহবধূকে হত্যার পর ডাকাতির ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার চার মাস পর শুক্রবার (৭ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে পার্শ্ববর্তী বদরগঞ্জ উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের নাগেরহাট বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার জাকির হোসেন দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার কুশদহ মাদরাসাপাড়া গ্রামের মৃত. শহিদুল ইসলামের ছেলে।

শনিবার (৮ জুন) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অর্থ ও প্রশাসন) মো. তরিকুল ইসলাম।

তিনি আরও জানান, গত ৬ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে মিঠাপুকুর উপজেলার বড়বালা ইউনিয়নের শালিকাদহ গ্রামের মৃত. মোহাম্মদ হোসেন সরকারের ছেলে আবু রায়হান মো. মিজানুর রহমানের বাড়িতে একটি হত্যাসহ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। মুখোশধারী ৬-৭ জনের একটি দল বাড়ির প্রাচীর টপকে ভেতরে ঢুকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে মিজানুরের স্ত্রী মোর্শেদা বেগম সুইটির (৩২) মাথায় আঘাতের পর তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এ সময় ডাকাতদল মিজানুরকে মারপিট ও মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে স্বর্ণালংকার, মোবাইল ফোন, নগদ টাকা, জমির দলিলসহ প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, এ ঘটনায় পরের দিন আবু রায়হান মো. মিজানুর রহমান বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের ছয় দিনের মাথায় অভিযান চালিয়ে হত্যাসহ ডাকাতির ঘটনায় জড়িত দুই আসামি এবং পরবর্তীতে আরও পাঁচজনকে গ্রফতার করে পুলিশ। যার মধ্যে তিনজন আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো জানান, মামলার প্রধান অভিযুক্ত পেশাদার দুর্ধর্ষ ডাকাত জাকির হোসেন ঘটনার পর থেকে গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে ছিলেন। ঘটনার চার মাস পর তদন্তকারী কর্মকর্তা নূর আলম সিদ্দিকের চেষ্টায় শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে জাকিরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জাকিরের বিরুদ্ধে মিঠাপুকুর, বদরগঞ্জ ও নবাবগঞ্জ থানায় চুরি, ডাকাতি ও মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধের নয়টি মামলা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এম২৪নিউজ/আখতার

Leave a Reply