তারাগঞ্জে ডাকাতির সময় ৫ ডাকাত আটক

শেয়ার করুন

নিউজ ডেস্ক:

রংপুরের তারাগঞ্জে এক পাট ব্যবসায়ীর গোডাউন থেকে ট্রাকে করে পাট তোলার সময় পুলিশ ৫ ডাকাতকে আটক করেছে। মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত প্রায় পোনে ৩টার সময় রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের তারাগঞ্জ ব্রাদাস কোলেস্টরেজের পাশে পাট ব্যবসায়ীর পাট গোডাউন থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে গোডাউনের ৬টি কেটে ফেলা তালা, একটি তালাকাঁটা কেঁচি, একটি শাবল, ৫টি বাঁসের লাটিঁ ও ৪টি মোবাইল সেট, রশি ও ট্রাক (খুলনা মেট্রো-ট ১১-২১২৯) উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় তারাগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক এস আই তোজাম্মেল বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে আটককৃত ৫ ডাকাতকে পুলিশ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয় ।

তারাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুশান্ত কুমার সরকার জানান, গত মঙ্গলবার ওয়ারেন্টট এর আসামী ধরে নিয়ে আসার জন্য তিনি নিজে সহ থানার এস আই নুরনব্বী, তোজাম্মেল হক, তরিকুল হক তোহা, রুহুল আমিন, সপিয়ার রহমান ও সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সসহ রাত প্রায় সাড়ে ১১টার সময় উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নে অবস্থান করেন।

কিন্তু দীর্ঘ সময় পরেও আসামীকে না পাওয়ায় রাত প্রায় পৌনে ৩টার সময় থানায় আসার পথে রংপুর –দিনাজপুর মহাসড়কের ব্রাদাস কোলেস্টরেজ এর পাশে পাট গোডাউনের দিকে আসতে থাকলে গভীর রাতে গোডাউনে সামনে ট্রাক লোড দেয়া হচ্ছে বিষয়টি সন্দেহ হলে ওসি সুশান্ত কুমার সরকার অন্য পুলিশ অফিসারদের সাথে পরামর্শ করে রোড টহলরত টিমকে ওই স্থানে আসতে বললে তারা তৎখানিকভাবে চলে আসলে ওসি সুশান্ত কুমার সরকারের নেতৃত্বে এক সঙ্গে পাট গোডাউনে অভিযান চালিয়ে ৫ ডাকাতকে আটক করেন। এসময় পাট ব্যবসায়ী দিলীপ সরকারের মোবাইল নাম্বর সংগ্রহ করে জানানো হলে তিনিসহ তার পরিবারের লোকজন ছুটে আসেন।

আটককৃতরা হলেন, ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ থানার পিরোজপুর গ্রামের মৃত শামসুদ্দিনের ছেলে শফিয়ার রহমান (৪৫) জব্দকৃত ট্রাকের ড্রাইভার, বরগুনা আমতলী থানার উত্তর গোপখালী গ্রামের মৃত জয়নাল গাজী ছেলে  মহসিন গাজী (৩২), একই জেলা ও থানার হলুদিয়া কলংক গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে রুবেল (২৯), একই জেলার তালতলি থানার পচা কোরালিয়া গ্রামের মৃত লতিফ হাওলাদারের ছেলে ফেরদৌস হাওলাদার(২৮) ও পটুয়াখালী গলাচিপা থানার শৈলবুনিয়া গ্রামের আব্দুর ছাত্তার মৃধার ছেলে ইয়াকুব আলী (৫১)।

সত্যনারায়ণ বাণিজ্যলয়ের সনাক্তকারী পাট ব্যবসায়ী দিলীপ সরকার বিকালে থানায় সাংবাদিকদের জানান, দুই বছর পূর্বে রাত প্রায় ২টার দিকে আমার পাট গোডাউন থেকে পিকাপে পাট তোলা হচ্ছিল। এসময় সেখানে আমিও আছি এমন মনে করে গোডাউনের কাছে আমার পূর্বপরিচিত গোডাউন এলাকার বাসিন্দা ও ডেকোরেটর ব্যবসায়ী আব্দুল রহিম আমার নাম ধরে গোডাউনের কাছে আসলে তাকে বেঁধে রেখে প্রায় ৫০মণ পাট ডাকাতেরা নিয়ে যায়। ওই ঘটনায় তিনি থানায় অভিযোগ করেছিলেন।

ওসি বলেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা আছে বলে জানাগেছে।

এম২৪নিউজ/আখতার

Leave a Reply