ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা, বাড়ি পাচ্ছে তরুণীর পরিবার

শেয়ার করুন

নিউজ ডেস্ক:

রংপুরের বদরগঞ্জে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার শিকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর এক তরুণীর পরিবারের জন্য বাড়ি নির্মাণ করে দিচ্ছে প্রশাসন।

মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার রামনাথপুর ইউপির খোর্দবাগবাড় মিশনপাড়ায় ওই তরুণীর পরিবারের জন্য বাড়ির ভিত্তি প্রস্থর উদ্বোধন করেন রংপুরের ডিসি আসিব আহসান।
 
জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী আশ্রয়ণ প্রকল্পের বিশেষ বরাদ্দ থেকে মিশনপাড়ায় ওই তরুণীল বাড়িতে ইটের তৈরি দুইটি কক্ষ, বারান্দা, রান্নাঘরসহ অবকাঠামো নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বি সুইট, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন, খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নেতা ফাদার কেবুবিম বাকলা, ফাদার বিদ্যা বর্মণ ও আদিবাসী নেতা শ্যামল টুডু প্রমুখ।

তরুণীর বাবা বলেন, বুকের ধনকে হারিয়ে আজো আমরা চোখের পানি ফেলছি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের সহযোগিতা করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

ডিসি আসিব আহসান বলেন, সরকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবারের উন্নয়নের জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তাদের ইতিহাস-ঐতিহ্য লালন করার জন্য নানামুখী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

গত ৬ অক্টোবর ভোরে বদরগঞ্জের পাশে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের ধারে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ওই তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আগের দিন একই এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে আনিছুর রহমান, অটোচালক রাজ মিয়া ও পার্শ্ববর্তী পার্বতীপুর উপজেলার পলাশবাড়ী ইউপির দুর্গাপুর এলাকার আশিকুজ্জামান বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে ওই তরুণীকে। সুত্র: ডেইলী বাংলাদেশ

এম২৪নিউজ/আখতার