শ্রমিক ছাটাইয়ের প্রতিবাদে রংপুর সুগার মিলের এমডি অবরুদ্ধ

শেয়ার করুন

নিউজ ডেস্ক:

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জস্থ ‘রংপুর সুগার মিল’ এর ৯২ শ্রমিককে ছাটাইয়ের প্রতিবাদে মিলের এমডি নূরুল কবিরকে শনিবার (২ জানুয়ারি) দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা।

সকাল ১০টায় এমডি’র কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে শ্রমিকরা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে দুপুর ১২টায় শ্রমিকরা এমডি’র কার্যালয়ের সামনে থেকে সরে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

রংপুর সুগার মিলে’র শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আবু সুফিয়ান অভিযোগ করে জানান, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের প্রজ্ঞাপনকে পাশ কাটিয়ে কোন প্রকার নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে শ্রমিকদের ছাটাই করা হচ্ছে। সম্প্রতি আখ মাড়াই স্থগিত রাখার সিদ্ধান্তে শ্রমিক কর্মচারী ও আখ চাষিদের অসন্তোষের মুখে গত বৃহস্পতিবার হঠাৎ করে চিনিকলের কারাখানা বিভাগের বিরানব্বই জন শ্রমিক কর্মচারীকে মৌখিক নির্দেশে চাকুরীচ্যুতির কথা জানিয়ে দেন মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নূরুল কবির। পহেলা জানুয়ারি থেকে তারা আর কাজে যোগ দিতে পারবেন না বলে জানান তিনি।

রংপুর সুগার মিলে’র শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, গত ২০ ডিসেম্বর বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প সংস্থার চীফ অব পার্সোনেল মো. রফিকুল ইসলাম প্রেস রিলিজে স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছেন, আখ মাড়াই স্থগিত হওয়া চিনিকলগুলোর কোন শ্রমিক-কর্মচারীর চাকরি যাবে না। তাদের বেতনভাতা আগের মতই নিয়মিত প্রদান করা হবে। কিন্তু কোন প্রজ্ঞাপন বা নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে এ চিনিকলের কারখানা বিভাগের ৯২ জন শ্রমিক-কর্মচারীকে ছাঁটাই করা হয়েছে বলে ৩১ ডিসেম্বর মৌখিকভাবে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। এটা কেউ মেনে নেবে না।

এব্যাপারে রংপুর চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. নূরুল কবির জানিয়েছেন, আখ মাড়াই বন্ধ হওয়ায় কারখানায় কোন কাজ না থাকায় কানামনা (কাজ নাই, মজুরী নাই) ভিত্তিক ৯২ জন শ্রমিককে প্রথম পর্যায়ে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। আমি জরুরি কাজে ঢাকায় যাচ্ছি। সেখান থেকে অনুমতি নিয়ে এসে তাদের নিয়োগের জন্য চেষ্টা করবো। সূত্র: ইত্তেফাক অনলাইন

এম২৪নিউজ/আখতার